গুগলের যে পণ্য ও সেবাগুলো আপনার অজানা

আমাদের বেশির ভাগই স্বচালিত গাড়ি, স্মার্ট কন্টাক্ট লেন্স, ইন্টারনেট বিমিং বেলুনস এবং অন্যান্য পণ্যসহ গুগলের বহুল প্রচারিত পণ্য ও সেবাগুলো সম্পর্কে জানেন।
এই পণ্য এবং সেবাগুলোর কথা শুনে আমার বিস্মিত হলেও আমাদের বেশির ভাগই এখনো এগুলো ব্যবহারের সুযোগ পাইনি।

কিন্তু গুগলের আরো এমন কিছু পণ্য আছে যেগুলো অবিশ্বাস্যরকমভাবে দরকারি। যেগুলোর অস্তিত্ব সম্পর্কেও হয়তো আপনি জানেন না।
উদাহরণত, আপনি কি জানেন গুগলের রয়েছে বিশাল ফ্রি ফন্ট লাইবেরি?
এখানে গুগলের এমন ১৭টি পণ্য ও সেবার বিবরণ রইল যেগুলোর অস্তিত্ব আছে সেটিই হয়ত আপনি জানেন না।
১. গুগল কিপ এমন একটি কিলার নোট এবং রিমাইন্ডার অ্যাপ যা ডেস্কটপ এবং স্মার্টফোন উভয় ডিভাইসে সমানভাবে কাজ করে।
২. আপনি গুগলে একটি টাইমার সেট করতে পারবেন। এটি ব্যবহার করে আপনি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য গুগল ব্যবহারের সীমা নির্ধারণ করতে পারবেন। আর সময় শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ওই টাইমার আপনাকে ঘণ্টা বাজিয়ে জানিয়ে দেবে।
৩. গুগল ডটকম/স্কাই আপনাকে নাসা, স্লোয়ান ডিজিটাল স্কাই সার্ভে, এবং হাবল টেলিস্কোপের স্যাটেলাইট থেকে গৃহীত ছবি ব্যবহার করে বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের সুদূর পর্যন্ত উদঘাটন করার সুযোগ করে দেবে।
৪. গুগল বুকস এনগ্রাম ভিউয়ার একটি মজার টুল যা আপনাকে ১৫০০ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত প্রকাশিত ৫২ লাখ বইয়ের মধ্যে শব্দ অনুসন্ধানের সুযোগ দেবে। ফলে কোনো শব্দ বিভিন্ন সময়ে কীভাবে ব্যবহৃত হতো এবং সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কীভাবে তা বদলে গেছে তা দেখতে পারবেন আপনি।
৫. বিশাল সংখ্যাগুলো দেখে কি আপনি আতঙ্কিত? গুগল আপনাকে সহায়তা করবে কীভাবে সেগুলো উচ্চারণ করতে হবে। আপনাকে শুধু শব্দটি লিখে এর পরে “=english” টাইপ করতে হবে।
৬. গুগল ট্রান্সলেটে একটি ম্যানুয়াল ফিচার আছে যেটির ব্যবহার করে আপনি অক্ষর বা চিহ্ন আঁকতে পারবেন।
৭. একইভাবে, গুগল ইনপুট টুল আপনাকে ৮০টিরও বেশি ভাষায় টাইপ করার সুযোগ দেবে। কিন্তু এর জন্য বিশেষ কোনো কীবোর্ড ডাউনলোড করার দরকার হবে না।
৮. গুগলডটকম/ফন্টস এ আপনি বিনামূল্যে জাঁকালো সব ফন্ট পাবেন।
৯. গুগল স্কলার ব্যবহার করে অবিশ্বাস্যরকমভাবে সহজ উপায়ে পেশাদার জার্নাল এবং পেপারে তথ্য অনুসন্ধান করতে পারবেন।
১০. গুগল আর্ট প্রজেক্ট ব্যবহার করে বিশ্বের সেরা সেরা জাদুঘরগুলোর সেরা সেরা শিল্পকর্মের ছবি দেখতে ও ডাউনলোড করতে পারবেন।
১১. থিঙ্ক উইথ গুগল হলো বিপণনকারীদের একটি ‘ডিজিটাল চিট শিট’। যেখানে এটি এর ডেটা ব্যবহার করে কোনো ইন্ডাস্ট্রির ডেকে কী আছে তা জড়ো করে।
১২. এই মুহূর্তে লোকে কী নিয়ে বেশি আগ্রহী আছেন তা জানতে চান? গুগল ট্রেন্ড প্রতিদিনের সবচেয়ে বেশি সন্ধানকৃত টার্মগুলো দেখায়। এ ছাড়া কোনো পরিভাষা কীভাবে সময়ের সঙ্গে বেড়েছে বা হ্রাস পেয়েছে তাও দেখতে পাবেন।
১৩. গুগল এক্সপ্রেস ব্যবহার করে আপনি একই দিনে খাদ্য, ইলেকট্রনিক্স, বই এবং অন্যান্য পণ্যের ডেলিভারি পাবেন। তবে এই সেবাটি শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই সীমাবদ্ধ। যুক্তরাষ্ট্রের ৯০ ভাগ এই সেবার আওতায় রয়েছে।
১৪. গুগল সাউন্ড সার্চ ব্যবহার করে আপনি যে গানটি শুনছেন তা শনাক্ত করতে পারেবন। গুগল প্লে স্টোর থেকে প্রতিটি ট্র্যাক কেনার সঙ্গে এটি আপনাকে সেগুলোর সঙ্গে যুক্ত করবে।
১৫. প্রাণীদের কোলাহোলেরও একটি ক্যাটালগ রয়েছে গুগলের। যা আপনি ‘অ্যানিমেল সাউন্ড’ এই শব্দটি অথবা নির্দিষ্ট প্রাণীর নাম টাইপ করে সার্চ দিলে সহজেই পেয়ে যাবেন। বাচ্চাদের বিনোদন দেওয়ার জন্য এর ব্যবহার করা যেতে পারে।
১৬. জি বোর্ড হলো আইফোনের একটি অ্যাপ যা আপনার কীবোর্ডে গুগল সার্চ সক্রিয় করবে। যা থাকলে আপনাকে আর একাধিক অ্যাপের আগে পিছে যেতে হবে না।
১৭. আপনি যদি দান করার কারণ জন্য যথাযথ কারণ খুঁজে না পান বা বিখ্যাত দাতব্য প্রতিষ্ঠানগুলো খুঁজে বের করতে সমস্যায় পড়ে যান তাহলে গুগলস ওয়ান টুডে আপনাকে সহায়তা করবে। এই অ্যাপটি ভিন্ন ভিন্ন দাতব্য প্রতিষ্ঠানের সংক্ষিপ্ত বিবরণসহ নাম দেখাবে এবং আপনি কীভাবে সহায়তা করতে পারেন তা বলবে।

About the Author

Leave a comment

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>